করোনা ভাইরাসের এ ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যে যেখানে মানুষ ঘর থেকে বের হতে ভয় পায়, সেখানে জীবনের মায়া ত্যাগ করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের রোগীদের পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন তিরক্ষা সচিব আবদুল্লাহ আল মোহসীন চৌধুরী এবং সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসক মো. মঈন। আর অবশেষে মানুষের সেবায় নিজেদের জীবন উৎসর্গ করে গেছেন তারা। তাদের এই ত্যাগ কখনো এই বাংলার মানুষ ভুলে যাবে না।

তবে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারানো এই দুই কর্মকর্তার পরিবার ৫০ লাখ টাকা করে মোট ১ কোটি ক্ষতিপূরণ পাচ্ছে। প্রথম ক্ষতিপূরণ পাচ্ছে প্রয়াত প্রতিরক্ষা সচিব আবদুল্লাহ আল মোহসীন চৌধুরী এবং সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসক মো. মঈন উদ্দীনের পরিবার।

চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে ’স্বাস্থ্যঝুঁকি বাবদ ক্ষতিপূরণের জন্য বিশেষ অনুদান’ খাতে যে ৫০০ কোটি টাবা বরাদ্দ রয়েছে, তা থেকে এ ব্যয় করা হবে। সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী- কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত হলে ক্ষতিপূরণ বাবদ গ্রেডভেদে পাঁচ থেকে ১০ লাখ টাকা পাবেন। আর মারা গেলে পাবেন ২৫ থেকে ৫০ লাখ টাকা।

সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ উভয় পরিবারের নামে ৫০ লাখ টাকা করে মোট ১ কোটি টাকা মঞ্জুরি দিতে দুটি আলাদা চিঠি পাঠিয়েছে একই বিভাগেরই প্রধান হিসাব কর্মকর্তার কাছে।



অর্থ বিভাগের চিঠিতে বলা হয়েছে, প্রয়াত প্রতিরক্ষাসচিব আবদুল্লাহ আল মোহসীন চৌধুরী ও সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসক মো. মঈন উদ্দিনের স্ত্রীদের কাছে ক্ষতিপূরণের চেক হস্তান্তর করবেন অর্থ বিভাগের ড্রইং অ্যান্ড ডিসবার্সিং অফিসার।

এই দু’জনের পরিবারকে দেওয়ার মধ্য দিয়েই শুরু হচ্ছে ক্ষতিপূরণ দেওয়া কার্যক্রম। প্রথমে যারা করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন তাদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। এরপর ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে যারা আক্রান্ত হয়েছেন তাদের।

আসলে বলতে গেলে, যেভাবে তারা নিজেদের জীবনের মায়া ত্যাগ করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের মানুষের পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে এসে জীবন উৎসর্গ করে গেছেন, তাদের আত্মত্যাগের মূল্য কখনো টাকা দিয়ে পরিমাপ করা যায় না। তাদের স্থান এ দেশের প্রতিটা মানুষের হৃদয়ে।




১ কোটি টাকা পাচ্ছে করোনায় প্রাণ হারানো দুই কর্মকর্তার পরিবার
Logo
Print

সারা দেশ Hits: 120

 

করোনা ভাইরাসের এ ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যে যেখানে মানুষ ঘর থেকে বের হতে ভয় পায়, সেখানে জীবনের মায়া ত্যাগ করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের রোগীদের পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন তিরক্ষা সচিব আবদুল্লাহ আল মোহসীন চৌধুরী এবং সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসক মো. মঈন। আর অবশেষে মানুষের সেবায় নিজেদের জীবন উৎসর্গ করে গেছেন তারা। তাদের এই ত্যাগ কখনো এই বাংলার মানুষ ভুলে যাবে না।

তবে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারানো এই দুই কর্মকর্তার পরিবার ৫০ লাখ টাকা করে মোট ১ কোটি ক্ষতিপূরণ পাচ্ছে। প্রথম ক্ষতিপূরণ পাচ্ছে প্রয়াত প্রতিরক্ষা সচিব আবদুল্লাহ আল মোহসীন চৌধুরী এবং সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসক মো. মঈন উদ্দীনের পরিবার।

চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে ’স্বাস্থ্যঝুঁকি বাবদ ক্ষতিপূরণের জন্য বিশেষ অনুদান’ খাতে যে ৫০০ কোটি টাবা বরাদ্দ রয়েছে, তা থেকে এ ব্যয় করা হবে। সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী- কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত হলে ক্ষতিপূরণ বাবদ গ্রেডভেদে পাঁচ থেকে ১০ লাখ টাকা পাবেন। আর মারা গেলে পাবেন ২৫ থেকে ৫০ লাখ টাকা।

সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ উভয় পরিবারের নামে ৫০ লাখ টাকা করে মোট ১ কোটি টাকা মঞ্জুরি দিতে দুটি আলাদা চিঠি পাঠিয়েছে একই বিভাগেরই প্রধান হিসাব কর্মকর্তার কাছে।



অর্থ বিভাগের চিঠিতে বলা হয়েছে, প্রয়াত প্রতিরক্ষাসচিব আবদুল্লাহ আল মোহসীন চৌধুরী ও সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসক মো. মঈন উদ্দিনের স্ত্রীদের কাছে ক্ষতিপূরণের চেক হস্তান্তর করবেন অর্থ বিভাগের ড্রইং অ্যান্ড ডিসবার্সিং অফিসার।

এই দু’জনের পরিবারকে দেওয়ার মধ্য দিয়েই শুরু হচ্ছে ক্ষতিপূরণ দেওয়া কার্যক্রম। প্রথমে যারা করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন তাদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। এরপর ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে যারা আক্রান্ত হয়েছেন তাদের।

আসলে বলতে গেলে, যেভাবে তারা নিজেদের জীবনের মায়া ত্যাগ করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের মানুষের পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে এসে জীবন উৎসর্গ করে গেছেন, তাদের আত্মত্যাগের মূল্য কখনো টাকা দিয়ে পরিমাপ করা যায় না। তাদের স্থান এ দেশের প্রতিটা মানুষের হৃদয়ে।




Template Design © Joomla Templates | GavickPro. All rights reserved.