ঘটনাটি ঘটে শনিবার (০৯ জানুয়ারি) দুপুর প্রায় ১ টার দিকে। ২৫৩/৩ নাখালপাড়ার একটি ভবনের তৃতীয় তলার কক্ষের জানালার দিকে তাকিয়ে আশপাশের প্রতিবেশীরা ঘটনাটি প্রত্যক্ষ করলেও কিছুই করার উপায় ছিল কারোরই। ইতিমধ্যে এই ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। যেখানে দেখা যায় ,ভেতরের খাটের উপর একটি মে/য়ের /ম/র/দে/হ। অপর একজন /না/রী/কে/ দা/ দিয়ে /আ//ঘা/ত কর/ছে এক যুবক। কিন্তু উপস্থিত দর্শকরা এই দৃশ্য দেখলেও কিছুই করার ছিলো না তাদের। পরে তারা ভবনমালিককে মোবাইল ফোনে বিষয়টি জানান। নিচেও আশপাশের লোকজন জড়ো হন। লোকজনের উপস্থিতি টের পেয়ে /ঘা//ত/ক/ রনি ভে/তর থে/কে দ/র/জা বন্ধ// করে দেন। পরে /স্থা/নী/য়/রা ঘ/রে/র /দ/র/জা /ভে/ঙে/ ভে/ত/রে ঢু/কে দেখে/ন /ইয়াসমিনের /নি/থ/র /দে//হ প/ড়ে আছে /মে/ঝে/তে/। খবর পেয়ে পুলিশ রনি নামের ওই যুবককে আটক করেছে।
পুলিশ জানিয়েছে, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এ ঘটনার কথা স্বীকার করেছেন রনি। তবে কী কারণে এই ঘটনা ঘটেছে তা এখনও জানা যায়নি।

নি/হ/ত/রা/ হ/লেন রনির/ স্ত্রী/ ইয়াসমি/ন আ/ক্কাস (২৮) ও শ্যালি/কা সিমু (১৭)। ইয়াসমিন পোশাক/কর্মী /আর সিমু সম্প্র/তি নাবিস্কো এলাকায় একটি প্রতিষ্ঠানে কাজে যোগ দিয়েছিলেন। তাদের বাড়ি/ নর/সিংদীতে আর রনির বাড়ি জামালপুরে।


এদিকে এ বিষয়ে পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার হারুন অর রশীদ সংবাদ মাধ্যমকে জানান, এ ঘটনায় আটক রনিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এবং /মৃ্ত///দে/হ ম/য়না/তদ/ন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদিকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রনি এ ঘটনার দায় স্বীকার করে নিয়েছে।