চলতি মাসের গত ৭ জানুয়ারি ঢাকা রাজধাণীর কলাবাগানে ১৭ বছর বয়সী এক স্কুল শিক্ষার্থীকে মি/থ্যা প্র/লোভন দেখিয়ে ফাকা বাসায় নিয়ে ন্যা/ক্কা/রজ/ন/ক ঘটনার পর/ /হ/’/ত্যা//র/ দায়ে দিহান নামে এক ১৮ বছর বয়সী যুবককে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। জানা যায়, এ ঘটনার ২ মাস আগে থেকেই তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠেছিল। আর এরপর থেকেই তাদের মেলামেশা আরও হতে থাকে।

এদিকে আজ বুধবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টায় রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষার্থী আনুশকার মা দাবি করেছেন, গত ৭ জানুয়ারি দিহান ও তার সঙ্গীরা আমার মেয়েকে অ/প/হ/র/ণ করে নিয়ে যায়। বাসায় নিয়ে /ধ///র্ষ//ণ/ শেষে আমার মে/য়ে/কে /মা//র্ডা//র করা হয়েছে। দিহান তখন ফোন দিয়ে জানায়, হাসপাতালে পায়ে ধরে /কা//ন্না/কা/টি করে বলে, ’আন্টি আ/মা/কে বাঁ/চান।’ তখন দিহান আরো বলে, ’আমরা চা/রজ/নই/ তাকে বাসায় নিয়ে যাই।’ আ/মা/র /মে/য়ে/ /ফাঁ/কা/ বাসায় একা যা/ওয়ার কথা না বলে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে /অ/প/প্র//চা/র চা/লা/নো হচ্ছে/ অভিযোগ এনে তিনি/ বলেন, আ/মা/র নি/ষ্পা//প মে/য়ে/কে নিয়ে মি//থ্যা /প্র/চা//র/ণা/ চা/লা/নো/ হচ্ছে। চ/রি//ত্র/হ/ন/ন করা হ/চ্ছে। এর তী/ব্র/নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে মিথ্যা /প্রচার/ণা//কা/রী/দে/র সাইবার /ইব্যুনালে/ বিচারের দাবি জানান তিনি।

একইসাথে পুলিশ অ/প/হ/র/ণ /মা/ম/লা// করতে দেয়নি অভিযোগ এনে /স্কু/লছা/ত্রীর/ মা বলেন, /আ/ম/রা অ/প/হ//র/ণ/ /মা/ম/লা/ /ক/তে চেয়েছি। কিন্তু পুলি/শ সেটা করতে দে/য়/নি। সা/মা/জিক যোগাযোগমাধ্যমে বলা হচ্ছে, দিহানের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এ তথ্য মোটেও সঠিক নয়। /দি/হা/নে/র সঙ্গে আ/মা/র মে//য়ের প/রিচয় ছিল না।

তিনি বলেন, আমি চার দফা দাবি জানাচ্ছি। দ্রুত বিচার আইনে /দিহা/ন ও তার/ স//ঙ্গী/দে/র বি/চা/রের/ আ/ও/তায় আ/ন/তে হবে। সরকার যেন তদন্তে /আ/মাদে/র সহযোগি/তা করে। স্বচ্ছ ও সঠিক ডি/এ/ন/এ পরীক্ষা/ করা হোক। ন্যায়বিচার নিশ্চিত করা হোক। প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ, আপনি একজন মা। আমি অমার মেয়ের সাথে ঘটে যাওয়া এ ঘহটনার ন্যায় বিচার চাই।

নিহত স্কুলছাত্রীর বাবা বলেন, মেয়েকে পেয়ে আমি আমার মায়ের শূন্যতা ভুলেছি। মেয়ে আমার মায়ের মতো ছিল। আমাকে না বলে কিছুই করতো না মেয়েটা। আমরা সেভাবে মেয়েকে গড়ে তুলেছি। যেদিন ঘটনা ঘটে, ওইদিন সে আমাকে ফোন দিয়েছিল, কিন্তু জরুরি সভা থাকায় আমি ফোন ধরতে পারিনি। আমার একটাই অনুরোধ সরকারের কাছে, সঠিক তথ্য তুলে ধরা হোক।


এদিকে গতকাল মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) দিহানের বাসার দারোয়ান দুলাল নিজের জবানবন্দিতে জানিয়েছেন, ঘটনার সময় মেয়েটির সাথে দিহানকে একাই দেখতে পেয়েছেন তিনি। এর কিছুক্ষণ পর অচেতন অবস্থায় ঐ মেয়েটিকে একাই হাসপাতালে নিয়ে যায় দিহান।