গত রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলার গাভীনা গ্রামে বন্ধুর বিয়েতে দাওয়াত খেতে গিয়েছিলেন সৌমিক আকঞ্জি নামে এক যুবক। কিন্তু কে জানতো? এই দাওয়াত খেতে যাওয়াটাই তার জীবনের শেষ খাওয়া হয়ে যাবে। জানা গেছে, দাওয়াত খাওয়ার পর এক পর্যায়ে হঠাৎ ব/মি ক/রতে শুরু করেন সৌমিক। অবস্থা গুরুতর দেখে নিকটবর্তী একটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে /মৃ/ত/ ঘোষণা করে।
সৌমিক দুর্গাপুর পৌরসভার ভবানিপুর এলাকার অ্যাডভোকেট শাহ্নেওয়াজ আকঞ্জির ছেলে। তিনি কলেজশিক্ষার্থী ছিলেন।

দুর্গাপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শামছুল আলম এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে তিনি জানান, রোববার বিকেলে মাকে সঙ্গে নিয়ে বন্ধুর বিয়ের দাওয়াতে গাভীনা গ্রামে যান সৌমিক। সেখানে একটু বেশিই খেয়েছিলেন তিনি। খাওয়ার পর এক পর্যায়ে হঠাৎ ব/মি ক/রতে শুরু করেন। পরে দ্রুত স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লে/ক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে /মৃ//ত ঘোষণা করেন।


চিকিৎসকের বরাত দিয়ে তিনি জানান, ধারণা করা হচ্ছে, অতিরিক্ত খাও/য়া/র কা/রণে তার /মৃ/ত্যু/ হয়েছে।


এ বিষয়ে দুর্গাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ্ নুর-এ আলম জানিয়েছেন, পরিবার-পরিজনদের অনুরোধেই সৌমিক আকঞ্জির মৃতদেহ ম/য়/না/ত/দন্ত ছা/ড়াই দাফন করা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় থানায় একটি অ/প/মৃ//ত্যু /মা/ম/লা/ দায়ের করা হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেন তিনি।