দেশে মহামারী করোনা ভাইরাস প্রতিরিধে সকলের গুরুত্বকেই সমান করে দেখছেন বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার। তাই এবার এমপিওভুক্ত নতুন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের বাদ পড়া সকল শিক্ষক এবং শিক্ষকতার আয়তায় থাকা সকল কর্মচারীদের জন্য বিশাল সুখবর দিতে যাচ্ছেন এ সরকার। জানা গেছে, আসন্ন করবানীর ঈদ আসার আগে আগেই দেশের সকল শিক্ষকদের বকেয়া বেতন বঞ্চিতদের এমপিওভুক্তির আওতায় অন্তর্ভুক্ত করার জন্য আগামী বৃহস্পতিবা (১৮ জুন) বিশেষ সভা ডেকেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)।

মঙ্গলবার মাউশির পরিচালক মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০১৯-২০ অর্থবছরে মাউশির আওতাধীন নতুন এমপিওভুক্তি/এমপিও স্তর পরিবর্তন করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) দ্বিতীয় পর্যায়ে শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতার সরকারি অংশ প্রদানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ লক্ষ্যে মে মাসের সভা অধি-দফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুকের সভাপতিত্বে আগামী ১৮ জুন বেলা ১১টায় ভিডিও- কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হবে। সভায় সব সদস্যকে (মাউশির কর্মকর্তারা ব্যতীত) ভিডিও কনফারেন্সে সংযুক্ত হওয়ার জন্য তাদের ই-মেইল ঠিকানায় একটি লিংক পাঠানো হবে।

সভায় আলোচনার বিষয়বস্তু হচ্ছে- নতুন এমপিও-ভুক্ত/এমপিও ও স্তর পরিবর্তন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (স্কুল-কলেজ) শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিও সুবিধা (বকেয়াসহ) প্রদান ও বিবিধ বিষয় নিয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

নতুন এমপিওভুক্ত হওয়া শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদের আগে বকেয়া বেতন, বোনাস প্রদানসহ শিক্ষক-কর্মচারীদের অনলাইনে আবেদন করতে নির্দেশনা দেয় মাউশি।

এরপর গত ১৬ মে বিশেষ এমপিওভুক্তির সভার আয়োজন করা হয়। প্রথম ধাপে যারা আবেদন করতে পারেনি ও আবেদন অসম্পূর্ণ থাকায় বাতিল হওয়া শিক্ষক-কর্মচারীদের দ্বিতীয় ধাপে আবেদন করতে বলা হয়।


বর্তমানে দেশের সার্বিক দিক বিবেচনা করে এই বিশেষ সভা ডাকা হয়েছে। কেননা দেশে করোনা পরিস্থিতিতে অন্যান্যদের মতো শিক্ষকদের অনেকটা কাজবিহীন ঘরে বসে থাকতে হচ্ছে। তাই এ পরিস্থিতিতে তাদের পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন সরকার। সুতরাং এ বিশেষ সভার মাধ্যমে শিক্ষকদের বকেয়াবেতন প্রদানে নতুনভাবে এমপিও-ভুক্তি করা হবে বলে ধারনা করা হচ্ছে।