প্রাণঘাতী নভেল করোনা ভাইরাসের তাণ্ডবে বিশ্বের অন্যান্য দেশের পাশাপাশি ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বাংলাদেশেও। প্রায় এ লাখেরও অধিক মানুষকে চাকরি হারিয়ে পথে নামতে বাধ্য করেছে করোনায় নামের এই অদৃশ্য শত্রু। তবে দুঃখের বিষয় হলো, দীর্ঘ ১০ টি মাসেরও অধিক সময় ধরে এ ভাইরাসটি সারাবিশ্বে অবস্থান করলেও এর থেকে পরিত্রানের কোনো উপায় বের করতে পারেননি বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারীর এ সময়ে দুর্নীতি-অনিয়ম করে আয় করা টাকা জীবন বাঁচাতে কাজে আসেনি মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন: একটা সময় দেখে যেতো একটু থেকে একটু হলেই চিকিৎসার জন্য বিদেশ চলে যেতো। কিন্তু করোনা বুঝিয়ে দিয়ে গেলো টাকা-পয়সার কোন মূল্য নেই। আর মনে হয় করোনাভাইরাস এসেছে মানুষকে ’শিক্ষা’ দিতে।

বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলটির সম্পাদকমণ্ডলীর বৈঠকে বৈঠকে ভিডিও কনফারেন্স যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন তিনি। এবার নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সে সম্পাদকমণ্ডলীর বৈঠকে দলীয় সভাপতির দ্বিতীয় যোগদান।


দলীয় নেতাকর্মীদের প্রাপ্তির জন্য রাজনীতি না করে জনগণের কল্যাণে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন: করোনা দেখিয়ে দিলো টাকা পয়সা কোন কিছুর মূল্য নেই। বিশ্বের অনেক উন্নত দেশ যেখানে করোনা সামলাতে হিমশিম খেয়েছে, সেখানে আমরা আমাদের অর্থনৈতিক কার্যক্রম একদিনের জন্যও থামতে দেইনি। অনেক উন্নত দেশের প্রবৃদ্ধি যেখানে মাইনাস গ্রেডে, সেখানে আমরা প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা হয়তো ধরে রাখতে পারিনি কিন্তু পাঁচের ওপরে আমাদের প্রবৃদ্ধি থাকবে বলে ধারণা পাওয়া যাচ্ছে।

এসময় করোনা পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় বেশি করে খাদ্য উৎপাদনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

করোনায় অর্থনীতির গতি ধরে ধরে রাখতে সরকারের নানা উদ্যোগের কথা তুলে ধরে বঙ্গবন্ধু কন্যা বলেন: করোনাভাইরাস এসে সারা দুনিয়া স্থবির করে দিয়েছে, আমাদের দল আমাদের সরকার কিন্তু থেমে থাকেনি। জনগণের জন্য কাজ করে চলছি৷ অর্থনৈতিক কার্যক্রম সচলে আমরা তাৎক্ষনিকভাবে প্রণোদনা দিয়েছি।

তিনি আরও বলেন: আমার করোনা মহা/ম/রীতে /মৃ/ত্যু/র হার কম রাখতে সক্ষম হয়েছি। কারণ ঘাবড়ে না গিয়ে তৎক্ষ/ণিক সিদ্ধা/ন্ত নিতে পেরেছি। করোনা সং/ক্র/মণ/ শুরুর পরই দুই হাজার /ডাক্তার নিয়োগ করেছি, নার্স নিয়োগ দিয়েছি।

এসময় করোনার দ্বিতীয় ধা/ক্কা সামলাতে সকলকে সতর্ক হবার আহ্বান জানিয়ে প্রধা/নম/ন্ত্রী বলে/ন: করোনার আবার একটা ধাক্কা আসছে। সচেতন হলে কিন্তু সুস্থ থাকা যায়৷ মা/স্ক পরতে হবে, স্বা/স্থ্য/বি/ধি মেনে চলতে হবে; এখন এর বিকল্প নেই। ভ্যাকসিন আসছে, তা নিয়ে নানা গবে/ষ/ণা চলছে। আমরা আগাম টাকা দিয়ে রাখছি৷ যখনই বাজারে আসবে আমরাও পাবো। এখন মাস্ক পরা-স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার বিকল্প নেই।


উল্লেখ্য, দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ৬ হাজার ২৭৫ জন। এবং মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাড়িয়েছে ৪ লাখ ৩৮ হাজার ৭৯৫ জন। তবে আক্রান্তের মধ্যে থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন৩ লাখ ৫৪ হাজার ৭৮৮ জন। দেশে এই মুহুর্তে করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৭৭ হাজার ৭৩২ জন।