সাধারণত অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে দেখলে কিছু অপশক্তি তা রুখে দিতে নানা বাধা-প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করার চেষ্টা চালিয়ে যেতে থাকে। যেকারনে নিজের জীবন নিয়ে সংশয়ের মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই আবদুল কাদের মির্জা। আজ সোমবার (১১ জানুয়ারি) বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে ব্যবসায়ীদের উদ্যোগে আয়োজিত নির্বাচনী সভায় অংশ নিয়ে তিনি বলেন, ’কোম্পা/নীগঞ্জে /অ//স্ত্রে/র /ঝ/ন/না/নি চলছে। যে কোনো সময় আ/মার /জীব/ন বিপ/ন্ন/ হতে পারে।’
তিনি আরও বলেন, ’আমি আপনাদের কবর দেখিয়ে দিয়েছি, আমাকে/ সেখানে কবর দেবেন। য/দি/ /মা/রা/ যা/ই হশরে/র ম//য়/দানে/ দেখা হবে। আ/মার শে/ষ কথা হচ্ছে, চা/ম/চা/রা/ শেখ হাসি/নার সব অ/র্জ/নকে/ /ধ্বং//স ক/রে দিচ্ছে/।’


সে সময় তিনি বলেন, ’আমি নি/র্বাচন/কে অন্যায়ের বি/রু/দ্ধে প্রতিবাদের অংশ হিসেবে নি/য়েছি। তাই তারা একরাম চৌধুরী, /ফেনী/তে নিজাম হা/জা/রী, /নোয়া/খালীর ডিসি, এসপি, জেলা নির্বাচন অফিসার নি/র্বাচন /নিয়ে ষ/ড়/যন্ত্র/ করছে। একই সঙ্গে ক/বি/রহাট ও ফেনীতে এক বাড়িতে বসে নির্বাচন বা/ন/চা/ল করার য/ড়য/ন্ত্র করছে।’

’পত্রপত্রিকাগুলো আমার কথা হুবহু না লিখে এডিট করে আমার কথাগুলো বিকৃত করে প্রকাশ করছে। এগুলো প্রধানমন্ত্রী ও আমাদের ম/ন্ত্রী/র নিকট পাঠি/য়ে আমার বিরু/দ্ধে /খে//পি/য়ে/ তুলছে।’ অভি/যোগ করেন কাদের মির্জা।


সম্প্রতি ক্ষমতাসীন দলের অনিয়মের বিরুদ্ধে নানা বক্তব্য দেয়ায় তীব্র নিন্দা প্রকাশ করে কাদের মির্জাকে সতর্ক হয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে দলের বিভিন্ন নেতাকর্মীরা। তাদের মধ্যে আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও আপন ভাই ওবায়দুল কাদেরও তাকে সবাধান করেছেন।