বিশ্বব্যাপী চলমান এ ভয়াবহ পরিস্থিতির কারনে রীতিমতো বিপাকে পড়তে হচ্ছে লাখ লাখ মানুষকে। আর এই তালিকায় রয়েছে প্রবাসীরাও। সংক্রমন শুরুর থেকেই সমস্যা যেন তাদের পিছু ছাড়ছে না। ফলে অনেক চেষ্টা করেও দেশে ফিরতে পারেনি অনেকেই। তবে পরিস্থিতি কিছুটা অনুকূলে আসায় আটকে পড়া প্রবাসীদের দেশের ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে প্রশাসন। আর এরই জের ধরে এবার জানা গেল, থাইল্যান্ডে ক/রো/নাকা/লে আটকে পড়া আরও ২২ বাংলাদেশি ও থাই নাগরিক বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের একটি বিশেষ ফ্লাইটে বাংলাদেশে এসেছেন।
ব্যাংককে বাংলাদেশ দূতাবাসের ব্যবস্থাপনায় গতকাল শনিবার বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইট হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছে। এর আগে সুবর্ণভূমি বিমানবন্দরে আটকে পড়া এ যাত্রীদের বিদায় জানান ব্যংককে বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তারা।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জনকূটনীতি বিভাগের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আজ রোববার এ খবর জানানো হয়।

বাংলাদেশ সরকারের বিদেশে আটকে পড়া বাংলাদেশিদের দেশে ফেরৎ আনার প্রতিশ্রুতির অংশ হিসেবে যাত্রীদের নিজ খরচের ভিত্তিতে এ বিশেষ বিমান পরিচালনা করা হয়।

ব্যাংককে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আবদুল হাই আটকে পড়া বাংলাদেশিদের প্রত্যাবাসনে সব ধরনের সহায়তা করায় থাই সরকারকে ধন্যবাদ জানান।



সারা-দেশজুড়ে চলমান এ সক্রমনের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত ব্যাংককে বাংলাদেশ দূতাবাস ব্যাংকক-ঢাকা রুটে মোট ১৭টি বিশেষ ফ্লাইটের ব্যবস্থা করে। গত ২০১৯ সালের শেষের দিকে চীনের উহান থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে এ সংক্রমন। এরপর ধীরে ধীরে এর তীব্রতা বাড়তে থাকায় সাময়িকভাবে বন্ধ হয়ে যায় বিমান যোগাযোগ ব্যবস্থা।