প্রথম সংসার ভাঙতে না ভাঙতেই গত সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) রাত ১২ টা ৫ মিনিটে দ্বিতীয়বারের মতো বিয়ের পিঁড়িতে বসেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী মাহিয়া মাহি। পাত্র কামরুজ্জামান সরকার রাকিব। তিনি পেশায় একজন ব্যবসায়ী। সোশ্যাল মিডিয়ায় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন মাহি নিজেই। ভক্তদের উদ্দেশ্যে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে ছবি প্রকাশ করে মাহি লিখেছেন, ’আলহামদুলিল্লাহ। আজ ১৩/০৯/২১ ইং, ১২টা ৫ মিনিটে আমাদের বিবাহ সম্পন্ন হলো। এর আগের সব কথা আসলেই গুজব ছিলো। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন এটাই একমাত্র চাওয়া।’

মাহি ও রাকিব দুজনেরই এটি দ্বিতীয় বিয়ে। প্রথম স্ত্রীর সংসারে দুই সন্তানের জনক রাকিব। এরমধ্যে একটি ছেলে একটি মেয়ে। ছেলেটির নাম সোয়াইব ও মেয়েটির নাম সাইয়ারা। রকিবের সঙ্গে তার প্রথম স্ত্রীর ডিভোর্স হয়েছে কিনা সেটি এখনও জানা যায়নি।

স্বামীর দ্বিতীয় পক্ষের সন্তানদের নিয়ে মাহি গণমাধ্যমে বলেন, ’বিয়ে করেই মা হয়েছি। কিন্তু এখনো আমার সেই সন্তানদের সঙ্গে দেখা হয়নি।’

রাকিবের সঙ্গে মাহির বন্ধুত্ব বেশ পুরনো। দুজনের মতের মিল এবং বোঝাপড়াও ভালো। আর তাই ৯ বছরের বন্ধুত্বকে বিয়েতে রূপ দিয়েছেন তারা। এই বিয়ে নিয়ে আশাবাদী মাহি।

এ প্রসঙ্গে তিনি গণমাধ্যমে জানিয়েছেন, ’বিচ্ছেদ হওয়ার পরে একসময় বিয়ে তো করতেই হতো। যেহেতু তাকে আমার সব দিক থেকে ভালো লেগেছে, সেই জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সে–ও মনে করেছে, আমার সঙ্গে বিয়ে হলে সুখী হবে। সেই জায়গা থেকেই আমাদের বিয়ে।’

এদিকে মাহির বিয়ের পর আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে ছোট একটি মেয়ের সঙ্গে তার একটি ছবি ভাইরাল হয়েছে। অনেকে ধরেই নিয়েছেন, মেয়েটি মাহির দ্বিতীয় স্বামী রাকিবের সন্তান।

মাহি বলেন, ’ভাইরাল হওয়া মেয়েটি আমার মেয়ে নয়। যাকে আমার মেয়ে বলে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হচ্ছে, সেই মেয়েটি আমার এক বান্ধবীর মেয়ে। সম্প্রতি আর্জেন্টিনার খেলা দেখার জন্য বান্ধবীর বাসায় গিয়েছিলাম। তখন ছবিটি তুলে ফেসবুকে পোস্ট করেছিলাম।’


উল্লেখ্য, এর আগে ভালোবেসে গত ২০১৬ সালে পারভেজ মাহমুদ অপুকে বিয়ে করেছিলেন মাহি। কিন্তু দাম্পত্য জীবনের মাত্র ৫ বছরের মাথায় বিচ্ছেদ ঘটে তাদের। এরপর গত ১৩ সেপ্টেম্বর ব্যবসায়ী রাকিবকে জীবনসঙ্গী করেন মাহি। বর্তমানে বেশ ভালই কাটছে তাদের সময়।