দীর্ঘ এক বছরেরও অধিক সময় ধরে সারাবিশ্বজুড়ে চলমান মহামারী করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে প্রতিনিয়ত লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা, অন্যদিকে থামছে না মৃ/ত্যু/র সংখ্যাও। ফলে রীতিমতো হতাশায় ছেয়ে গেছে গোটা বিশ্ব। আর এরই জের ধরে এবার জানা গেছে, করোনার এই দুর্বিষহ অবস্থার মা/রাত্ম/ক হতাশার চাপ নিতে না পেরে শেষমেষ মৃত্যুর পথ বেঁছে নিয়েছেন ৬ বয়সী চিকিৎসক বিবেক রায়
জানা গেছে, গত এক মাস তিনি কাজ করেছেন হাসপাতালের কোভিড ওয়ার্ডের ভয়াবহ মৃ/ত্যু/পুরী/তে। আর এরই মধ্যে গতকাল শনিবার আ/ত্ম/হন/ন করেছেন এই তরুণ চিকিৎসক। বিবেকের স্ত্রী দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা/।

এ বিষয়ে ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (আইএমএ) সাবেক সভাপতি ডা. রবি ওয়ানখেদকর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিখেছেন, ’হাসপাতালের আইসিইউ-তে গত ১ মাস ধরে কর্মরত ছিলেন ওই তরুণ চিকিৎসক। করোনা রোগীদের চিকিৎসার দায়িত্বেই ছিলেন তিনি। প্রতিদিনের ভর্তি হওয়া ৭-৮ জন রোগীর মধ্যে বেশিরভাগই বাঁচতেন না। এই পরিস্থিতিতেই হতাশা গ্রাস করে ওই চিকিৎসককে। শেষে এই সিদ্ধান্ত নেন ডা.বিবেক।’

এদিকে ইতিমধ্যে তার মৃ্ত//দে/হ উদ্ধার করে ম/য়নাতদ/ন্তের হাসপাতালে নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এছাড়া মৃত্যুর পর তার কাছ থেকে একটি সু//ই/সা/ইড নোট উদ্ধারে করেছে তারা। ফলে এ বিষয়টি ইতিমধ্যে খুতিয়ে দেখছেন তারা।