২০১৩-১৪ সালে অ্যাডিলেড স্ট্রাইকার্সের হয়ে অস্ট্রেলিয়ার জনপ্রিয় টুর্নামেন্ট বিগ ব্যাশে অভিষেক হয় বাংলাদেশে জাতীয় দলের অন্যতম তারকা ও বিশ্বেসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের। খুব ইচ্ছা ছিল বিবিএলের আসন্ন সংস্করণেও খেলার। কিন্তা সেই আশা যেন নিমিশেই মাটিতে মিশে গেল। জানা গেছে, দুর্নীতির বিরুদ্ধে ’শূন্য সহিষ্ণুতা’র নীতির দরুন সাকিব বিবিএল খেলার আগ্রহ প্রকাশের পরই মুখের ওপর না করে দিয়েছে সিএ।
জুয়াড়িদের কাছ থেকে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়ে তা গোপন করায় ২০১৯ সালের অক্টোবরে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন সাকিব। শাস্তির মেয়াদ শেষ হয়েছে গত মাসের ২৯ অক্টোবর। এরপরই বিভিন্ন টুর্নামেন্টে খেলার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেন সাকিব।

সম্প্রতি ডেইলি টেলিগ্রাফকে সাকিব আল হাসান বলেছেন, সবার মনের ভেতর কী আছে, সেটা জানা সহজ নয়। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড (সিএ) হয়তো আমাকে নিয়ে সন্দেহ করছে। অথবা আমার ওপর আস্থা রাখতে পারছে না। আমি তা অস্বীকার করছি না।

তবে এদিকে এই প্রিয় তারকাকে ’বিবিএল’ এ খেলার অনুমতি না দেয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অসংখ্যা সাকিব প্রেমি ভক্ত ও শুভাকাঙ্খিরা। আগামি ডিসেম্বর মাসের ১০ তারিখ এই লিগ শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।